জুন ১৯, ২০২১
MIMS TV
আজিজুর রহমান প্রিন্স প্রবাস কথা প্রিয় প্রবাসী

বাংলাদেশ এগিয়ে গেছে

আজিজুর রহমান প্রিন্স
পাকিস্তানের পর এবার ভারত বাংলাদেশের সাফল্য নিয়ে কথা বলতে শুরু করেছে। IMF(International Monitory Fund) এক সমীক্ষায় বলেছে, বাংলাদেশ সব সূচকেই ভারতকে ছাড়িয়ে গেছে।
বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় এখন ১৮৮৮ মার্কিন ডলার। ভারতের গনমাধ্যমে গত কয়েকদিন ধরেই এই আলোচনা চলছে। পাকিস্তানের মত ভারতের গনমাধ্যমেও এখন মোদি সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় বইছে। সকলেরই জিঙ্গাসা কি করে পারলো বাংলাদেশ! ভারত কেন পিছিয়ে গেল?
বিশ্বব্যপি কোভিড-১৯ এর মহামারির মধ্যেও বাংলাদেশর GDP এখন ৪.৫। বাংলাদেশের রপ্তানি এখন ৩২ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে গেছে। ভারতের জিডিপি নেগেটিভে নেমে গেছে।
মাত্র ১০ বছরে বাংলাদেশ বিশ্ববাসীকে অবাক করে দিয়ে মধ্য আয়ের দেশে পরিনত হয়ে গেছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ অভ্যান্তরীন বহু সমস্যা বাংলাদেশেও রয়েছে কিন্তু, সব প্রতিবন্ধকিতা মোকাবেলা করে অর্থনীতিকে এগিয়ে নিয়ে গেছে বাংলাদেশ। সাফল্যের মুলমন্ত্রটি ছিল বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার দুরদর্শিতা আর তার সুযোগ্য নেতৃত্ব।
পাকিস্তান, ভারতের মত দুই দেশই এখন বাংলাদেশের উন্নয়ন দেখে ইর্ষন্বিত। দেশের বিশাল জনগোষ্ঠির পাশাপাশি এখন ১০ লক্ষ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছে বাংলাদেশ। বন্যা,করোনা মহামারি কোনকিছুই দেশটিকে দমিয়ে রাখতে পারেনি। তাইত এখন বিশ্ব নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উন্নয়নের মডেল আখ্যা দিয়েছেন।
প্রতিবেশী রাষ্ট্রের ইর্ষার কারন হলেও বাংলাদেশের উন্নয়ন দেখেননা দেশের নেতারা। দেশ বদলে গেলেও নেতারা অভিযোগ করেন দেশ ভারতের কাছে বিক্রি করে দিয়েছে। এখন তারা সরকার পতনের আন্দোলন করার হুমকি দেন। দাবী তুলেছেন মধ্যবর্তী নির্বাচনেরও। ৭৫ এর পরে যারা সরকার পরিচালনা করেছে তাদের রেকর্ড জনগনই ভাল জানে।
পর পর ৫ বার দুর্নীতিতে চেম্পিয়ান হয়েছে। অন্য আর যা যা ঘটেছে তা দেশের মানূষ ভাল জানে। মধ্যবর্তী নির্বাচন দিলেই কি এই নেতারা বিজয়ী হয়ে সরকার গঠন করতে পারবেন? আর যদি হয়েই যান, কে হবেন তাদের সরকার প্রধান?
দুই শীর্ষ নেতা মামলায় অভিযুক্ত হয়ে অযোগ্য হয়ে পরেছেন নির্বাচনে। তাহলে কোন নেতাটি সরকার গঠন করে দেশের এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতাটি অব্যহত রাখতে পারবেন? নেতাদের অযোগ্যতা দেখে জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে আগেই। দেশের রাজনীতি এখন জনগণের কাছে ফিরতে শুরু করেছে।
রাজনীতির নামে দুর্নীতি, দুর্বিত্তায়ন এখন হুমকির মূখে। দেশের দৃশ্যমান উন্নয়নে জনগণ সন্তুষ্ট এবং জননেত্রী শেখ হাসিনাকেই ভরসা করে দেশের ১৬ কোটি মানূষ। মনগড়া ইস্যু বানিয়ে যারা সরকার পতনের হুঙ্কার দেন তারা রাজনীতিকে ব্যক্তিকেন্দ্রিক বানাতে চান। বাংলাদেশের জনগণ তাদের এই অসত্য প্রলোভনে সমর্থন দিবেনা।
# আজিজুর রহমান প্রিন্স । টরন্টো, কানাডা 

Related posts

জয়যাত্রা কানাডা টাইমস’র আয়োজনে বিশেষ আলোচনা ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন এবং আজকের বাংলাদেশ’

admin

কানাডায় অ্যাস্ট্রেজেনেকা টিকা নেওয়ার পর এক মহিলার মৃত্যু

Irani Biswash

ইতালিতে রেমিট্যান্স পুরস্কার ২০২০ প্রদান করেছে রোমে বাংলাদেশ দূতাবাস

admin

Leave a Comment

Translate »