জুন ২৪, ২০২১
MIMS TV
আন্তর্জাতিক

যুদ্ধে যেতে চাচ্ছেন না আর্মেনীয় সেনা সদস্যরা!

সম্প্রতি কয়েকদিন বিরোধীয় নাগোরনো-করাবাখে আজেরি সেনাবাহিনীর আক্রমণের মুখে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে আর্মেনীয় বাহিনীর। এতে ইয়েরেভেনের ৫৪৩তম রেজিমেন্টের সেনাসদস্যরা যুদ্ধে যেতে চাচ্ছেন না।

বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম আজভিশন।

সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে বলা হয়, আর্মেনীয় সেনাবাহিনীর রিজার্ভ ইউনিটের ৫৪৩তম রেজিমেন্টের সেনাসদস্যরা নাগোরনো-কারাবাখে যুদ্ধে যেতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। তবে আর্মেনিয়ার কর্তৃপক্ষ গ্রামবাসীদের সংঘাতে জড়িয়েছে।

কিছু গ্রামবাসী যুদ্ধে যেতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। তারা তাদের সন্তানদের যুদ্ধ থেকে প্রতিরোধের জন্য যুদ্ধরত অঞ্চলের সড়কগুলোর সঙ্গে যাতায়াত ব্যবস্থা বন্ধ করে দিয়েছেন।

এছাড়া, হাদরুতের উত্তরে আঘদারার ৫তম ডেস্ট্রোয়ার রেজিমেন্টের প্রতিরক্ষা অঞ্চলে সেনাসদস্যদের অস্ত্র রেখে এবং পিছুহটতে তাদের আত্মীয়স্বজন ও পরিচিতজনরা আহ্বান জানিয়েছেন।

এর আগে কারাবাখের জাবরাইল প্রদেশে আজারবাইজানের সেনাবাহিনীর একের পর এক আক্রমণের মুখে যুদ্ধক্ষেত্র ছেড়ে পালিয়েছে আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনীর ৫৫৬ রেজিমেন্ট।

এছাড়া মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) রাত থেকে আঘদারা, ফুজুলি, জাবরাইল এবং গুবাদলি এলাকায় সম্মুখ যুদ্ধ হয়। এসব এলাকায় ব্যাপক আকারে ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়ে আর্মেনীয় বাহিনী। তাদের বেশ কিছু গোলাবারুদ ও বাহিনীর সদস্যদের প্রাণহানি ঘটে।

এর আগে মঙ্গলবার আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনীর অবস্থান লক্ষ্য করে দফায় দফায় হামলা চালায় আজারবাইজান সেনাবাহিনী। তাদের দাবি আর্মেনিয়ার হামলার প্রতিবাদেই হামলা চালিয়েছে তারা। এতে বহু হতাহতের দাবিও করা হয়।

আজারবাইজানের সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তা জানান, আমরা লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছি। বিজয় আমাদের হবেই।

এদিন জাতির উদ্দেশ্য বক্তব্য রাখেন আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়াভ। বলেন, তার দেশ নিজ ভূমি উদ্ধারের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। নতুন করে আর্মেনিয়ার অধীনে থাকা বেশ কয়েকটি অঞ্চল দখলমুক্ত করা হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।

বলেন, শত্রুরা আমাদের ভূমি ৩০ বছর ধরে দখলে রেখেছে। আমরা সেগুলো উদ্ধারে লড়াই করছি। এ যুদ্ধে বিজয় আমাদেরই হবে। প্রতিদিনই আমরা নতুন নতুন অঞ্চল দখলমুক্ত করছি। শত্রুরা পিছিয়ে যাচ্ছে।

বিতর্কিত অঞ্চলটি নিয়ে দুই দেশের মধ্যে চলমান সংঘাত বন্ধে একাধিকবার আহ্বান জানিয়েছে রাশিয়া। মস্কোর মধ্যস্থতায় দুটি যুদ্ধবিরতি চুক্তিতে সম্মত হলেও লড়াই অব্যাহত রেখেছে দুই দেশই।

অবশেষে চলমান লড়াই অবসানে দেশ দুটির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। আগামী শুক্রবার ওয়াশিংটনে এই বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

Related posts

তুর্কি পণ্য বয়কট সৌদির, কেনার প্রচারে কাতারি ব্যবসায়ী

শাহাদাৎ আশরাফ

জাপান সবসময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে: সুগা

admin

১৫৯ কর্মীকে ছাঁটাই করেছে গ্রামীনফোন

Irani Biswash

Leave a Comment

Translate »