জুন ২০, ২০২১
MIMS TV
বাংলাদেশ রাজনীতি

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে মরণেও একসঙ্গে ছিলেন বঙ্গমাতা : আইনমন্ত্রী

আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, মৃত্যুর মুখোমুখি হলে মানুষ বাঁচার চেষ্টা করেন। কিন্তু ১৫ আগস্ট বঙ্গমাতা সিঁড়ির ওপর বঙ্গবন্ধুর লাশ দেখে খুনীদের কাছে প্রাণভিক্ষা চাননি বরং বলেছিলেন আমাকে এখানেই মেরে ফেল, আমি কোথাও যাব না। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে মরণেও একসঙ্গে ছিলেন বঙ্গমাতা।

আজ বুধবার রাতে জাতীয় সংসদ অধিবেশনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কর্মময় ও বর্ণাঢ্য জীবনের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ দাবি জানান।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া অধিবেশনে আনিসুল হক বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন মহামানব, সারাবিশ্বের দুঃখী মানুষের অবিসংবাদিত নেতা। তাঁর হৃদয় ছিল বিশাল সমুদ্রসম। কর্মের মাধ্যমে বিশ্ববাসীকে জয় করেছিলেন তিনি।

আইনমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর প্রত্যেকটি পদক্ষেপই শিক্ষণীয়। আইনের শাসনের প্রতি অসম্ভব ছিলেন বলেই সংবিধানে বিচার বিভাগের স্বাধীনতার বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত করেছিলেন। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর বিচার বিভাগ পৃথকীকরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা শুধু নিশ্চিত করেননি, মানুষের ন্যায় বিচার প্রাপ্তি নিশ্চিত করেছেন। তাই আসুন সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তুলতে তাঁর কন্যা শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করি।

উল্লেখ্য, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী (মুজিববর্ষ-২০২০) উপলক্ষে গত রবিবার জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশন শুরু হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাতে এই অধিবেশনে গত সোমবার জাতীয় সংসদের কার্যপ্রণালী-বিধির ১৪৭ বিধির আওতায় সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ প্রস্তাব উত্থাপন করেন। পরে সাধারণ আলোচনা শুরু হয়েছে। চার দিনের আলোচনা শেষে আজ বৃহস্পতিবার প্রস্তাবটি পাসের মধ্য দিয়ে এই আলোচনা সমাপ্ত হবে।

Related posts

সহজ হলো বাংলাদেশ থেকে বিদেশে টাকা পাঠানোর প্রক্রিয়া

admin

শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের মশাল মিছিল, পুলিশের লাঠিচার্জ

শাহাদাৎ আশরাফ

লকডাউনে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ভিক্ষুকের ভিক্ষা মিলছে না

Irani Biswash

Leave a Comment

Translate »