জুন ১৯, ২০২১
MIMS TV
বাংলাদেশ শিক্ষা

‘৭ মার্চের ভাষণ পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করা হোক’

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে শিক্ষা কার্যক্রমে সিলেবাসভুক্ত করার প্রস্তাব করেছেন জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়া।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার (১১ নভেম্বর) জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশনে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এ প্রস্তাব করেন।
স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এ অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

ডেপুটি স্পিকার সংসদে দেওয়া বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে ইউনেসকো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ ঘোষণা করেছে। ইউনেসকো যদি বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে স্বীকৃতি দিতে পারে। তবে আমরা কেন শিক্ষা কার্যক্রমে এই ভাষণ সিলেবাসে অন্তর্ভুক্ত করতে পারব না? বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে শিক্ষা কার্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করার ব্যবস্থা নেয়া হোক।

ফজলে রাব্বি মিয়া জানান, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের অনেক লাইনের ওপর গবেষকরা গবেষণা করেছেন। এই ৭ মার্চের ভাষণের প্রতিটি লাইন বিশ্লেষণ করলে এক একটি প্রবন্ধ রচনা করা সম্ভব। ২৫ মার্চ রাতে গ্রেফতারের আগে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। মূলত তিনি স্বাধীনতা ঘোষণা দিয়েছিলেন ৭ মার্চের ভাষণেই। ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু অনেক বড় অবদান রেখেছিলেন।

তিনি বলেছিলেন, ‘তোমরা রক্ত দাও, আমি ভারতের স্বাধীনতা দেব।’ কিন্তু বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ‘রক্ত যখন দিয়েছি, রক্ত আরও দেব, এ দেশকে মুক্ত করে ছাড়ব ইনশাআল্লাহ।’

বঙ্গবন্ধু শুধু একটি নাম নয়, বঙ্গবন্ধু জাতিসত্তার প্রতিচ্ছবি উল্লেখ করে ডেপুটি স্পিকার বলেন, ৭ মার্চের ভাষণ, ভাষণের চেয়ে বেশি হলো এটি একটি রণকৌশলের দলিল।

Related posts

মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা ১২ থেকে ২০ হাজার টাকা করা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

admin

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল কাল আসছে ঢাকা

Irani Biswash

বৃহস্পতিবার বি. বাড়িয়া যাবেন আইজিপি

admin

Leave a Comment

Translate »