জুন ১৯, ২০২১
MIMS TV
আন্তর্জাতিক এই মাত্র পাওয়া কোভিড ১৯ প্রিয় লেখক মু: মাহবুবুর রহমান

বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে রাশিয়ায় শুরু হলো করোনার টিকাদান কর্মসূচি

সেই ১৯৫৭-য় আমেরিকা-সহ গোটা বিশ্বকে চমকে দিয়ে মহাকাশে প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠিয়েছিল রাশিয়া। প্রায় একই ধাঁচে এবছর আগস্টে সবার আগে করোনা টিকা উদ্ভাবনের ঘোষণা দিয়ে বিশ্বকে আবারো চমক দেখায় দেশটি। এবার আবার যুক্তরাষ্ট্র কিংবা যুক্তরাজ্য – যে দুটি দেশ এই ডিসেম্বরে করোনা টিকা প্রদান করবে বলে ঘোষণা দিয়েছে, তাদেরকে পেছনে ফেলে সবার আগে করোনা টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু করলো রাশিয়া।

বিশ্বের প্রথম দেশ হিসাবে এবং কোনরকম তথ্য প্রকাশ না করেই গত অগাস্ট মাসে স্থানীয়ভাবে ব্যবহারের জন্য মহাকাশে পাঠানো প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ স্পুটনিকের নামানুসারে “স্পুটনিক ভি” নামের করোনা টিকার লাইসেন্স দেয় রাশিয়া। এখন সেটির প্রয়োগও শুরু করলো দেশটি।

৫ ই ডিসেম্বর থেকে থেকে করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছে রাশিয়া। দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশে টিকা প্রদানের এই কার্যক্রম শুরু করা হয় বলে জানা গেছে। এর মাধ্যমে এই প্রথম বিশ্বের কোনো দেশ গণহারে করোনার টিকা দেয়া শুরু করলো।

রাশিয়ার রাজধানী মস্কোয় সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে থাকা নাগরিকদের কোভিড-১৯ টিকা “স্পুটনিক ভি” দেয়ার মাধ্যমে শুরু হয় এ ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রম। সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে থাকা নাগরিকদের মধ্যে রয়েছেন ডাক্তার, নার্স, শিক্ষক ও সমাজকর্মীরা। এ প্রসঙ্গে মস্কোর মেয়র সের্গেই সোবিয়ানিন বলেছেন, স্কুল, স্বাস্থ্য সেবা আর সমাজকর্মীদের আগে টিকাটি দেয়া হবে। তবে যতো টিকা আসতে থাকবে, এই তালিকা তখন আরও বড় হতে শুরু করবে।

 “স্পুটনিক ভি”  টিকাটির নির্মাতারা বলছেন, এটি ৯৫ শতাংশ কার্যকরী এবং বড় ধরণের কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তৈরি করে না। যদিও এখনো টিকাটির গণ-পরীক্ষার কার্যক্রম শেষ হয়নি।

এই সপ্তাহে “স্পুটনিক ভি” টিকার প্রথম দুটি ডোজ পাওয়ার জন্য হাজার হাজার মানুষ নাম তালিকাভুক্ত করেছেন বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে রাশিয়া মোট কত কোটি ডোজ টিকা তৈরি করতে পারবে তা এখনো পরিষ্কার নয়। তবে টিকাটির উৎপাদকরা ধারণা করছেন, চলতি বছরের শেষ পর্যন্ত ২০ লাখ ডোজ টিকা তৈরি করতে পারবে রাশিয়া।

রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত ২৩ লাখ ৮২ হাজার ১২ জন করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪১ হাজার ৭৩০ জনের। রাশিয়ায় করোনা মহামারির কেন্দ্র হয়ে উঠেছে মস্কো। মস্কোতে প্রতিদিন করোনা শনাক্ত হচ্ছে হাজার হাজার নাগরিকের শরীরে। আর তাই হয়তো মস্কোতেই সবার আগে দেয়া শুরু হলো করোনা টিকা।

এছাড়া, পাশ্চাত্যের প্রথম দেশ হিসাবে ফাইজার/বায়োএনটেকের করোনাভাইরাস টিকার অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাজ্য। সেদেশেও খুব শিগগিরই টিকাটির আনুষ্ঠানিক প্রয়োগ শুরু হতে যাচ্ছে। আর বিশ্বের দ্বিতীয় দেশ হিসেবে ফাইজার/বায়োএনটেকের টিকা ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে আরব দেশ বাহরাইন।

Related posts

যুবলীগের ২০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা

শাহাদাৎ আশরাফ

“রাশিয়া আংশিক মুসলিম রাষ্ট্র”

শাহাদাৎ আশরাফ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাইডেনকে নিশ্চিত করেছে ইলেকটোরাল কলেজ ভোট

admin

Leave a Comment

Translate »