জুন ২৪, ২০২১
MIMS TV
আন্তর্জাতিক এই মাত্র পাওয়া পরিবেশ প্রিয় লেখক ব্রেকিং নিউজ মু: মাহবুবুর রহমান

জলবায়ু পরিবর্তন : প্রতিশ্রুতি পূরণে উন্নত দেশগুলোর প্রতি আহবান প্রধানমন্ত্রীর

মু: মাহবুবুর রহমান 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিকূলতা মোকাবিলায় জলবায়ু তহবিলের পাশাপাশি কাঙ্ক্ষিত এবং প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বিপর্যয় প্রশমন ব্যবস্থা নিয়ে এগিয়ে আসার জন্য উন্নত দেশগুলোর প্রতি আহবান জানিয়েছেন। প্যারিস জলবায়ু চুক্তির পঞ্চম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে শনিবার (১২ ডিসেম্বর) আয়োজিত এক ভার্চুয়াল সম্মেলনে তিনি এ আহবান জানান।

যুক্তরাজ্য, জাতিসংঘ ও ফ্রান্স যৌথভাবে চিলি ও ইতালির সহযোগিতায় এই ভার্চুয়াল শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজন করে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজ আমরা ঐতিহাসিক প্যারিস চুক্তির পঞ্চম বর্ষ উদ্‌যাপন করছি। দুর্ভাগ্যক্রমে চুক্তি অনুযায়ী নির্ধারিত লক্ষ্যের ধারেকাছেও আমরা পৌঁছাতে পারিনি।’ তিনি বলেন, ‘বাস্তবতা হচ্ছে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত প্রতিকূলতা আমাদের নিষ্ক্রিয়তার জন্য থেমেও থাকছে না, বিপর্যয় থেকে আমাদের রেহাইও দিচ্ছে না।’

অনেক প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও, বাংলাদেশ অভিযোজন ব্যবস্থায় বিশ্বে নেতৃস্থানীয় হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই বিষয়ে, আমি সবাইকে মনে করিয়ে দিতে চাই যে, অভিযোজন করার সীমাবদ্ধতা রয়েছে।’

জলবায়ু ক্ষতিগ্রস্ত ফোরামের সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনা বলেন, প্রত্যেক দেশকে ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর মধ্যরাতের মধ্যে বর্ধিত এনডিসি ঘোষণা দেওয়ার আহ্বানের মাধ্যমেই তারা জলবায়ু ক্ষতিগ্রস্ত ফোরামের ‘মিডনাইট সারভাইবাল ডেডলাইন ফর দ্য ক্লাইমেট’ উদ্যোগটি চালু করেছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন যে, বাংলাদেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে দেশব্যাপী ১১.৫ মিলিয়ন গাছের চারা রোপণ করা হচ্ছে এবং সুরক্ষিত টেকসই ভবিষ্যতের জন্য সম্পদ জড়ো করতে ‘মুজিব জলবায়ু সমৃদ্ধি পরিকল্পনা’ নামে একটি কর্মসূচিও চালু করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের এনডিসি এবং অভিযোজন উচ্চাভিলাষকে যথেষ্ট পরিমাণে বাড়াতে আমরা বিপর্যয় প্রশমন প্রক্রিয়াতে বিদ্যমান জ্বালানি শক্তি, শিল্প ও পরিবহণ খাত ছাড়াও আরো কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ খাত অন্তর্ভুক্ত করেছি। আমরা আমাদের জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনাও চূড়ান্ত করছি।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘প্রতি বছর আমরা জলবায়ু পরিবর্তন সংবেদনশীল প্রকল্পের জন্য দুই বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং অভিযোজন ব্যবস্থার জন্য তিন বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয় করছি।’

বিশ্বে যে দেশগুলো জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে আছে, বাংলাদেশ রয়েছে সেই তালিকার একেবারে সামনের সারিতে। আর তাই জলবায়ু ঝুঁকি মোকাবেলায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে থাকা দেশগুলোর জন্য আন্তর্জাতিক তহবিলের পাশাপাশি পরিবেশবান্ধব নতুন প্রযুক্তি হস্তান্তরের ওপর জোর দিয়ে আসছে বাংলাদেশ।

২০২০ এর ভার্চুয়াল এ জলবায়ু সম্মেলনে অন্যান্যের  মধ্যে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং, জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি,  ইতালির মন্ত্রিপরিষদের প্রেসিডেন্ট সেলিনা নেইরোক লিম, কেনিয়ার প্রেসিডেন্ট উহুরু কেনিয়াত্তা, বারবাডোসের প্রধানমন্ত্রী হোন মিয়া মোটলি এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভাষণ দেন। এ ছাড়া ইউরোপিয়ান কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভনডর লায়েন অনুষ্ঠানে ভাষণ দেন।

জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ, চিলির প্রেসিডেন্ট সেবাস্তিয়ান পিনেরাঁ এবং ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুজুপ্পে কোন্তের উদ্বোধনী ভাষণের মাধ্যমে ভার্চুয়াল সম্মেলনটি শুরু হয়।

ঐতিহাসিক প্যারিস চুক্তির পঞ্চম বর্ষ উৎযাপন উপলক্ষে আয়োজন করা হয় এ ভার্চুয়াল জলবায়ু সম্মেলনের। বৈশ্বিক তাপমাত্রা কমিয়ে আনার লক্ষ্যে ২০১৫ সালের ঐতিহাসিক এ প্যারিস চুক্তিতে অনুস্বাক্ষর করে বিশ্বের প্রায় সব দেশ। তবে ২০১৬ সালে ক্ষমতায় এসেই চুক্তি থেকে সরে দাঁড়ান যুক্তরাষ্ট্রের ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন। তবে সুখের কথা হলো, নব নির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন হোয়াইট হাউসে যাওয়ার প্রথম দিনেই প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে ফেরার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

Related posts

বাংলাদেশ-যুক্তরাজ্য একসঙ্গে জলবায়ু মোকাবিলায় কাজ করবে

Irani Biswash

করোনার টিকা নিলেন বিএসএমএমইউ’র ভিসি ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া

admin

ফিলিপাইনে আঘাত হেনেছে ‘গনি’

শাহাদাৎ আশরাফ

Leave a Comment

Translate »