জুন ১৯, ২০২১
MIMS TV
আন্তর্জাতিক এই মাত্র পাওয়া ব্রেকিং নিউজ

সিনেটে অভিশংসন বিচার প্রক্রিয়ায় সাক্ষ্য দিতে অস্বীকৃতি ট্রাম্পের

যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসের উচ্চ কক্ষ সিনেটে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া অভিশংসন বিচার প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে জবানবন্দি দিতে এবং জিজ্ঞাসাবাদে অংশ নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন ট্রাম্প। প্রতিনিধি পরিষদের অভিশংসন ব্যবস্থাপকদের পক্ষ থেকে আকস্মিকভাবে জানানো এ অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছেন সাবেক প্রেসিডেন্টের আইনজীবীরা। মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমস-এর প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের আইনসভা ক্যাপিটল ভবনে উগ্র ট্রাম্প-সমর্থকদের হামলার পর বিদায়ী প্রেসিডেন্টকে নির্ধারিত সময়ের আগেই পদ থেকে সরাতে ডেমোক্র্যাটরা প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসন প্রস্তাব উত্থাপন করে। ১৩ জানুয়ারি ২৩২-১৯৭ ভোটে পাস হয় প্রস্তাবটি। ১০ জন রিপাবলিকানও এতে সমর্থন দেন। এর মধ্য দিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো কংগ্রেসের নিম্ন কক্ষে অভিশংসিত হন ট্রাম্প। চূড়ান্ত অভিশংসনের জন্য প্রস্তাবটি সিনেটে পাঠানো হয়েছে। আগামী সপ্তাহে সেখানে বিচারপ্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা। সিনেটে দুই-তৃতীয়াংশ ভোটে পাস করাতে হবে প্রস্তাবটি। অবশ্য এরইমধ্যে প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্পের মেয়াদ শেষ হয়েছে।

সিনেটে অভিশংসন বিচার প্রক্রিয়ার জন্য জবানবন্দি দিতে বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) আকস্মিকভাবে সাবেক এ প্রেসিডেন্টকে অনুরোধ জানায় হাউজ ইম্পিচমেন্ট ব্যবস্থাপকরা। ট্রাম্পকে শপথ পড়িয়ে ক্যাপিটল হিলের ঘটনা নিয়ে তার নিজের অবস্থান সম্পর্কে জানতে চাওয়া হবে। তবে প্রস্তাবটি দেওয়ার সাথে সাথেই তা প্রত্যাখ্যান করেছেন ট্রাম্পের আইনজীবীরা।

ট্রাম্পকে পাঠানো এক চিঠিতে প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য ও প্রধান অভিশংসন প্রসিকিউটর জেমি রাস্কিন লিখেছেন, এ সপ্তাহে সাবেক এ প্রেসিডেন্ট ৬ জানুয়ারির ঘটনা নিয়ে হাউজের অভিযোগের ব্যাপারে যা বলেছেন তা বাস্তবসম্মত নয়। এ ব্যাপারে আরও ব্যাখ্যার প্রয়োজন আছে।

ট্রাম্পকে উদ্দেশ্য করে রাস্কিন লিখেছেন, ‘দুই দিন আগে আপনি একটি জবাব পাঠিয়েছেন। সেখানে আপনি আর্টিকেল অব ইম্পিচমেন্টের অনেক বাস্তব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। আপনার সাংবিধানিক অপরাধ সংঘটনের সুস্পষ্ট ও বিপুল প্রমাণ সত্ত্বেও সমালোচনামূলক তথ্য উত্থাপনের চেষ্টা করেছেন।’

পারস্পরিকভাবে আলোচনার মধ্য দিয়ে আগামী সোমবার থেকে বৃহস্পতিবারের মধ্যে যেকোনও সময় ও স্থান নির্ধারণ করে ট্রাম্পের সাক্ষাৎকার নেওয়ার প্রস্তাব দেন রাস্কিন।

তবে সে প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করতে খুব একটা সময় নেননি ট্রাম্পের আইনজীবী ব্রুস এল. ক্যাস্টর জুনিয়র ও ডেভিড শোয়েন। এ বিচার প্রক্রিয়াকে অসাংবিধানিক উল্লেখ করে তারা বলেন, ট্রাম্প এর কোনও অংশেই থাকতে চান না। কারণ তিনি এখন আর প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্বে নেই।

রাস্কিনকে একটি চিঠিও দিয়েছেন ট্রাম্পের আইনজীবীরা। সেখানে তারা লিখেছেন, ‘আপনি চিঠিতে যা লিখেছেন তা আগে থেকে সবাই জানে। আপনি ৪৫ তম প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে পারবেন না। কারণ তিনি এখন একজন বেসরকারি নাগরিক।’

Related posts

ইতিহাসের ১৭ মার্চ, ১৯৭১

admin

বিশিষ্ট হকি সংগঠক শামসুল বারীর মৃত্যু

Irani Biswash

সকল সূচকেই আমরা পাকিস্তানকে অতিক্রম করেছি : তথ্যমন্ত্রী

admin

Leave a Comment

Translate »