অগাস্ট ৫, ২০২১
MIMS TV
আন্তর্জাতিক এই মাত্র পাওয়া প্রিয় লেখক ব্রেকিং নিউজ মু: মাহবুবুর রহমান যুক্তরাষ্ট্র

প্রথম মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দ্বিতীয়বার অভিশংসনের মুখে ট্রাম্প

মু: মাহবুবুর রহমান

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মেয়াদ শেষের আগেই ক্ষমতা থেকে নামানোর চেষ্টা শুরু হয়েছে। এই চেষ্টায় সোমবার (১১ জানুয়ারি) কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদে দুটো প্রস্তাব উত্থাপন করেছেন ডেমোক্র্যাটরা।

প্রথম প্রস্তাবে মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সকে সংবিধানের ২৫ তম সংশোধনী প্রয়োগ করে ট্রাম্পকে সরানোর আহবান জানানো হয়েছে। আর পেন্স যদি এই পদক্ষেপ নিতে না চান সেক্ষেত্রে ট্রাম্পকে সরানোর জন্য উত্থাপন করা হয়েছে অভিশংসন বা ইমপিচমেন্ট প্রস্তাব।

অভিশংসন প্রস্তাবে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বিশৃঙ্খলায় উস্কানির অভিযোগ আনা হয়েছে। কংগ্রেসে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আনা অভিশংসন প্রস্তাবের ওপর আগামীকাল বুধবার (১৩ জানুয়ারি) ভোট হতে পারে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম। এর ফলে ট্রাম্প হতে যাচ্ছেন ইতিহাসের প্রথম মার্কিন প্রেসিডেন্ট, যিনি দুবার অভিশংসন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যাবেন।

অভিশংসন প্রস্তাবে নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভুয়া দাবি ও ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল ভবনে সহিংসতার আগে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে তাঁর দেয়া বক্তব্যের কথা উল্লেখ করা হয়। এছাড়া এতে জর্জিয়ার রিপাবলিকান সেক্রেটারি অব স্টেটকে ফোন করার কথাও বলা হয়েছে, যাতে ট্রাম্প ঐ রাজ্যে তাঁর জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ভোট ‘খুঁজে বের করতে’ তাঁর প্রতি আহবান জানিয়েছিলেন। এসবের মাধ্যমে ট্রাম্প  যুক্তরাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার অখণ্ডতাকে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছেন বলে অভিশংসন প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়।

এর আগে ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অভিশংসিত করেছিল প্রতিনিধি পরিষদ বা কংগ্রেস। তবে এটি আর এগোয়নি। সিনেটে রিপাবলিকানরা সংখ্যাগরিষ্ঠতার জোরে প্রস্তাবটি খারিজ করে দেয়। ঠিক একই ঘটনা ঘটতে পারে এবারও। কারণ, এত কিছুর পরও এখন পর্যন্ত মাত্র চারজন রিপাবলিকান আইনপ্রণেতা প্রকাশ্যে ক্ষমতা থেকে ট্রাম্পের অপসারণের পক্ষে কথা বলেছেন।

এদিকে, প্রেসিডেন্ট পদে ট্রাম্পের মেয়াদ আছে আর মাত্র কয়েকদিন, ২০ জানুয়ারী পর্যন্ত। অনেকেই মনে করছেন এত কম সময়ে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়াও কঠিন। তবে তা যে অসম্ভব নয় সে ইঙ্গিতই ডেমোক্র্যাটরা দিল অভিশংসন বা ইমপিচমেন্ট প্রস্তাব উত্থাপন করে।

যদিও ইমপিচমেন্ট পক্রিয়া দীর্ঘ। অভিযোগ দায়েরের পর প্রতিনিধি পরিষদে ভোটাভুটির ধাপ পেরিয়ে সিনেটে যাওয়া। এরপর সেখানে আবার বিচার প্রক্রিয়া শুরু করা এবং তৎসংশ্লিষ্ট আরও নানা কাজ এবং শেষ পর্যন্ত ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করতে প্রয়োজনীয় সমর্থন লাভ— এতকিছু করতে করতে হয়তো ট্রাম্পের মেয়াদই শেষ হয়ে যাবে।

অবশ্য তাতেও কোনো সমস্যা নেই বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। কারণ, অভিশংসন চলতে পারে ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেয়াদ শেষের পরও। আর তা করা সম্ভব হলে ট্রাম্পকে ভবিষ্যতে কোনো সরকারি পদে আসীন হওয়া থেকে বিরত রাখা যাবে। সেক্ষেত্রে হয়তো ২০২৪ সালের নির্বাচনে ট্রাম্প আর প্রেসিডেন্ট প্রার্থীও হতে পারবেন না।

Related posts

‘হোয়াইট হাউসকে করোনার “হট জোন” করেছেন ট্রাম্প’

শাহাদাৎ আশরাফ

মাস্কের দাম ৮ লাখ

শাহাদাৎ আশরাফ

সাইবার হামলা নিয়ে বাইডেনের হুঁশিয়ারি

Mims tv : Powered by information

Leave a Comment

Translate »