অগাস্ট ৪, ২০২১
MIMS TV
অভিমত আজিজুর রহমান প্রিন্স প্রবাস কথা প্রিয় প্রবাসী

রাজনীতির ভুল

আজিজুর রহমান প্রিন্স

রাজনীতির ভুল শুধরানো যায়না। একটি ভুল দলকে, দলের নেতৃত্বকে জনবিচ্ছিন্ন করে দেয়। ২০১৪ সালের নির্বাচনে সকল জরিপে বিএনপি’র বিজয় নিশ্চিত দেখিয়েছে। নেতা-কর্মীরাও নির্বাচনের পক্ষে ছিল। কিন্তু বেগম জিয়া নির্বাচন বর্জনের সিদ্ধান্ত নেন। সিদ্ধান্তটি ভুল ছিল। সেই ভুলেরই মাশুল দিচ্ছে দলটি। এখন দলের নেতৃত্ব নেই। সুনির্দিষ্ট কোন কর্মসূচিও নেই। জামাতকে ছেড়ে দিলে বিএনপি’র অবস্থান হবে জাসদের মত।

একই ভুল শেখ হাসিনা করেননি। বিএনপি নির্বাচন বর্জন করার সুযোগটি নিয়েছেন। নির্বাচিত হয়ে দেশের উন্নয়নে হাত দিয়েছেন। বদলে দিয়েছেন দেশকে। বিগত নির্বাচনেও বিএনপি অন্যদের পরামর্শে নির্বাচনে গিয়েও প্রচারণা চালায়নি। ভোট বিহীন নির্বাচনের ফাঁদে ফেলতে গিয়ে নিজেরাই ফাঁদে পড়ে গেছে। সঠিকভাবে প্রচারণা চালালে একটা সম্মানজনক অবস্থান পেতে পারত দলটি। যতই যুক্তি দেখাক, জামাতের সঙ্গে যুক্ত হয়ে নির্বাচনে গিয়ে দলের ভোট ব্যাংক নষ্ট করেছে। নির্বাচনের দিনেও মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের কাছে নির্বাচন সুষ্ঠ হচ্ছে বলে দাবী করেছেন। নির্বাচনের এক সপ্তাহ পর থেকে অভিযোগ করতে শুরু করেছে, আগের রাতে ভোট হয়ে গেছে।

যদি তাই হয় তাহলে নির্বাচনের দিন এই বক্তব্য দিলেন কেন? নির্বাচনের দিনেও এই ঘোষণা দিলে সত্যতা নিয়ে জনগণ বিভ্রান্ত হত। সরকার গঠনের পরে সরকারকে অবৈধ আখ্যা দেওয়া নিজেদের ব্যর্থতাকে ঢাকা দেওয়ার চেষ্টা মাত্র। তাদের ভাষায় অবৈধ সংসদে গিয়ে বিএনপি দু-মুখী চরিত্র প্রকাশ করেছে। রাজনীতিতে কৌশল জরুরী হিপোক্রেসি নয়।

বিএনপি নেতৃত্বহীনতায় ভুগছে। কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যেও মতানৈক্য রয়েছে। সাম্প্রতিক উপ-নির্বাচনের নমিনেশন নিয়ে কেন্দ্রীয় দপ্তরের সামনে মারামারি করেছে নেতারা। মূল নেতৃত্বের নিয়ন্ত্রণ ছাড়া দলের কর্মীবাহিনী এখন দিশেহারা। দলের এমন অবস্থা নিয়ে নেতারা নির্বাচন দাবী করেন কোন ভরসায়? ধরে নিলাম সরকার বিএনপি নেতাদের দাবী মেনে নির্বাচন দিয়ে দিল।

বিএনপি কি নির্বাচনে জয়ী হতে পারবে? যদি হয়েই যায়, কাকে তারা সরকার প্রধান বানাবেন? দলের এমন দুর্বল অবস্থায় বিএনপি’র নির্বাচনের দাবী কতটা যৈক্তিক? জামাতের কারণে বিএনপি’র জনপ্রিয়তা নেমে গেছে। নির্বাচনে গেলে জামাতের সঙ্গে বিএনপি’র সম্পর্কটি কি হবে? এসব বিষয় বিএনপি নেতারা ঠিকই জানেন। তাদের অবস্থানটিও বোঝেন নেতারা। কেউ মাঠে যেতে চান না। টেলিভিশনে বক্তব্য দিয়ে জনগণকে উদ্ভুদ্ধ করা কঠিন। শুধু বক্তব্য দিয়ে রাজনীতিকে সচল রাখতেই অভিযোগ করেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক যথার্থই বলেছে ‘নালিশ পার্টি’। বিএনপি অভিযোগ করছে আর সরকার দেশের উন্নয়ন করে যাচ্ছে। প্রত্যন্ত অঞ্চলের সাধারণ মানুষটিও এখন সব জেনে যায় মুহূর্তে। অসত্য অভিযোগ রাজনীতির মরণ ডেকে আনে।

#

আজিজুর রহমান প্রিন্স
টরন্টো, কানাডা
৩০ অক্টোবর ২০২০

Related posts

বিশ্বে একজনের মৃত্যুর জন্য দায়ী কার্বন নিঃসরণ করে তিনজন আমেরিকান

Mims tv : Powered by information

রোহিঙ্গাদের স্থায়ীভাবে বাংলাদেশে রেখে দেয়ার প্রস্তাব বিশ্বব্যাংকের

Mims tv : Powered by information

মার্চেই ঢাকা টরেন্টো ফ্লাইট চালুর প্রত্যাশা বিমান প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলীর

Mims tv : Powered by information

Leave a Comment

Translate »