অগাস্ট ১, ২০২১
MIMS TV
অর্থনীতি আন্তর্জাতিক

ঋণের দায়ে জর্জরিত আরব দেশগুলো

করোনায় পর্যটকরা হয়তো মিসরের সমুদ্র সৈকত আর ঐতিহাসিক দর্শনীয় স্থানগুলোতে ফিরে আসেনি, কিন্তু বিনিয়োগকারীরা ঠিকই ফিরে এসেছে। তারা ঋণ দিচ্ছে। করোনা মহামারির প্রথম দিন থেকেই বিক্রি বন্ধ। মে থেকে স্থানীয় ঋণের পরিমাণ ১০ বিলিয়ন ডলার। বিদেশিরা যে আসা বন্ধ করে দিয়েছে এটাও এর বড় কারণ।

শুধু মিসর নয় গোটা আরব বিশ্বের অবস্থা এই। বছরের প্রথম দশ মাসে জিসিসিভূক্ত ছয় দেশের ঋণের পরিমাণ রেকর্ড একশো বিলিয়ন ডলার। ট্রেজারিগুলো স্থানীয় বিনিয়োগকারীদেরও উৎসাহী করে তুললেও সর্বদা তা সফলভাবে হচ্ছে না। যেমন, তিউনিসিয়া সরকার কেন্দ্রীয় ব্যাংককে ট্রেজারি বন্ড কিনতে বলেও সফল হয়নি।

অনিয়ন্ত্রিতভাবে ঋণ নিচ্ছে আরব দেশগুলো। এমনকি করোনার প্রকোপ শুরু আগেও তেলের মূল্য হ্রাস ও মন্থর অর্থনীতির গতি ফেরাতে নতুন নতুন ঋণ নিচ্ছিল অনেক দেশ। মহামারি শুধু এর প্রয়োজনীয়তা বাড়িয়েছে। আগামী বছরের মধ্যে এসব দেশের মধ্যে অনেকগুলোর ঋণের পরিমাণ হবে গত দুই দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ।

Related posts

কানাডা থেকে ‘শ্বেতবলাকা’ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেছে

Mims tv : Powered by information

কানাডায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ বাংলাদেশি শিক্ষার্থীর মৃত্যু : প্রবাসী কমিউনিটিতে শোকের ছায়া

Mims tv : Powered by information

বঙ্গবন্ধুর নামে মরিশাসের রাজধানী পোর্ট লুইসে সড়কের নামকরণ

Mims tv : Powered by information

Leave a Comment

Translate »