অগাস্ট ৫, ২০২১
MIMS TV
জীবনধারা স্বাস্থ্য

উপকারী ফল ‘কমলালেবু’

ফারহানা মোবিন

কমলালেবু সারা পৃথিবী তে ভীষণ পরিচিত একটি ফল।
পৃথিবীর প্রায় সকল দেশে এই ফল পাওয়া যায়। আমাদের দেশে (বাংলাদেশে) সারা বছর এই ফল পাওয়া যায়।
আর কিছু দিন পরেই সারা পৃথিবীতে শুরু হবে শীতকাল।
শীতকালের উপকারী বন্ধু হলো কমলালেবু।
এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি এবং ভিটামিন এ। এই ভিটামিন দুইটি চোখ, নখ, চুল, হাড়, সর্বোপরি পুরো দেহের জন্য ভীষণ উপকারী। শিশু বয়স থেকে এই ফল খাওয়ার চেষ্টা করতে হবে।
ভিটামিন সি পুরো দেহের চামড়ার পুষ্টি যোগায়, বহুবিধ ছোঁয়াচে অসুখ থেকে দূরে সরিয়ে রাখে। গরম ঠান্ডা জনিত অসুখ গুলো থেকে রক্ষা করে এই ফল।
কমলালেবু তে রয়েছে কেরোটিনয়েড (carotinoid) নামক এক উপাদান, যা ভাইরাসজনিত ইনফেকশনকে প্রতিহত করে। ডায়রিয়ার জীবানুকে করে দূর্বল।
তারুণ্য বজায় রাখতে যুদ্ধ করে দেহের বিষাক্ত উপাদান গুলোর বিরুদ্ধে।
কমলালেবুতে আরো আছে উপকারী বন্ধু bita carotin, এই উপাদান দেহের শীতকালিন অসুখ দূর করে, রোগ প্রতিরোধ শক্তি বাড়িয়ে তোলে। মুখ ও ঠোটের কোণায় ঘা, টনসিল, কাশি, শারীরিক দুর্বলতা কমাতে সাহায্য করে।
এই ফলে রয়েছে anti oxidant নামে এক জরুরী উপাদান, যা দেহের বিষাক্ত জীবাণুকে মেরে ফেলতে যথেষ্ট ভূমিকা রাখে। ডায়াবেটিক রোগীর জন্যও এই ফল খুব দরকারি।
তবে ডায়াবেটিক রোগীরা মিষ্টি কমলালেবু না খেয়ে টক লেবু খাবেন। কিছুটা টক লেবু তাদের জন্য বয়ে আনবে সুফল।
এই ফল শরীরে টক্সিন এর পরিমাণ কমায়। বেড়ে যাওয়া টক্সিন দেহে বিভিন্ন রকম অসুখ তৈরী করে। তাই নিয়মিত কমলালেবু খান। তবে এই ফলে পটাশিয়াম আছে। যা কিডনীর জটিলতায় আক্রান্ত সকল রোগীর জন্য খাওয়াটা উচিত হবেনা। চিকিৎসক এর পরামর্শ মেনে খাওয়া উচিৎ।
যেকোনো ঘা, জিহ্বায় ঘা, কাটা ও সেলাইজনিত চামড়া, মাংসপেশী শুকানোর জন্য কমলালেবু ভীষণ উপকারী ফল। গবেষণায় দেখা গেছে, যারা নিয়মিত এই ফল খায়, তাদের দাঁত এর অসুখ হয় তুলনামূলক ভাবে কম। তবে শুধু এই ফল খেলে চলবেনা। নিয়মিত দাঁতের যত্ন নিতে হবে।
চোখের পাতায় ইনফেকশন (conjunctivitis), চোখ ওঠা ভীষণ ছোঁয়াচে রোগ। এই অসুখ গুলোর বিরুদ্ধ লড়াই করে কমলালেবু।
কমলালেবুতে লিপিড (fat) নেয়। তাই যারা ওজন কমাতে চান, তারা দুশ্চিনতামুক্ত হয়ে এই ফল খান। ঠোট ও পায়ের গোড়ালি ফেটে যাওয়া রোধ করে ভিটামিন সি এবং ভিটামিন এ। এই দুই ধরনের ভিটামিন এই ফলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে।
এই ফলের পুষ্টিগুণ তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়। তাই ফ্রিজ এ সংরক্ষন না করাই ভালো।
পৃথিবীর একেক দেশে একেক প্রজাতির কমলালেবু পাওয়া যায়। সব ধরনের লেবু উপকারী। কমলালেবু কিনতে না পারলে, ভাতের সাথে যে লেবু আমরা খাই তা নিয়মিত খান।
সব বয়সের মানুষের জন্য ভিটামিন সি খুব দরকারি। আমাদের শরীরে প্রয়োজন এর বেশি লিপিড বা fat রক্তে জমা হয়। কিন্তু ভিটামিন সি জমা হয়না। তাই নিয়মিত ভিটামিন সি ভীষণ জরুরী। তবে acidity যাদের বেশি হয়, তারা রাতে লেবু খাবেন না। কমলালেবু খাবার পর দুধ জাতীয় খাবার বাদ দিবেন।
সায়নোসাইটিস অসুখের রোগীদের খুব দ্রুত শীতকালিন অসুখ গুলো হয়। তাদের জন্য এই ফল খুব উপকারী।
গুণের বিচারে, এই সারা বছর কমলালেবু হোক আপনার উপকারী বন্ধু।

# ফারহানা মোবিন, চিকিৎসক ও লেখক

Related posts

অলেম্পিকে ভারোত্তোলনে ভারতের প্রথম পদক বিজয়ী মীরাবাই চানু

Irani Biswash

ইভ্যালির সম্পদের চেয়ে ৬ গুণ বেশি দেনা

Irani Biswash

কাউন্সেলিং টেবিলের গল্প

Mims tv : Powered by information

Leave a Comment

Translate »